pytheya.blogspot.com Webutation

২৫ ডিসেম্বর, ২০১২

Adam Neuser: সম্রাট দ্বিতীয় সেলিমকে লেখা পত্র।



যাজক অ্যাডাম নিউসার (Adam Neuser) ছিলেন সারভেটাসের সমসাময়িক। তিনি কনষ্টান্টিনোপলের মুসলিম শাসক সম্রাট দ্বিতীয় সেলিমের নিকট একটি পত্র দিয়েছিলেন। এটি রাজকীয় প্রাচীন নিদর্শনের অংশ হিসেবে এখন হাইডেলবার্গের (Heidelburg) আর্কাইভে সংরক্ষিত রয়েছে। চিঠিটি ছিল এমন-

সম্রাট দ্বিতীয় সেলিম।
মহামান্য সম্রাট! 
“আমি, অ্যাডাম নিউসার, জার্মানিতে জন্মগ্রহণকারী একজন খৃষ্টান এবং হাইডেলবার্গবাসীদের নিকট ধর্ম প্রচারকারীর মর্যাদা লাভকারী। হাইডেলবার্গ এমন একটা শহর, যেখানে শিক্ষিত লোকদের বসবাসের হার বেশী। আমি আল্লাহ ও তাঁর রসূলের মধ্য দিয়ে একান্ত বিনয়ের সাথে মহামান্য সুলতানের কাছে আবেদন জানাচ্ছি, আমাকে একজন অনুগতদের মধ্যে এবং আপনার সেই জনগণের মধ্যে অন্তর্ভুক্ত করে নিন যারা এক আল্লাহতে বিশ্বাসী। 

আমি জানি ও সর্বান্তঃকরণে বিশ্বাস করি যে ইসলাম ধর্ম পবিত্র, সুস্পষ্ট ও সর্বজন গ্রহণযোগ্য। আমার দৃঢ় বিশ্বাস যে, আমার খৃষ্ট সমাজ ত্যাগের ঘটনা বহু বিবেচনাশীল ব্যক্তিকেই আপনার বিশ্বাস ও ধর্ম গ্রহণ করতে অনুপ্রাণিত করবে, বিশেষ করে তাদের মধ্যে সর্বাপেক্ষা শিক্ষিত ও সর্বাপেক্ষা বিবেচনাশীল বহু ব্যক্তি যেহেতু আমারই মত মনোভাব পোষণ করেন যা আমি মহামান্য সুলতানকে মৌখিকভাবে অবহিত করব। আমার সম্পর্কে বলতে গেলে আমি সেই ব্যক্তি যার সম্পর্কে আল কুরআনের ত্রয়োদশ অধ্যায়ে বলা হয়েছে-

সম্রাট দ্বিতীয় সেলিম।
খৃষ্টানরা তোমাদের প্রতি ইহুদীদের চেয়ে বেশি সদিচ্ছা প্রদর্শন করে; এবং তারা তাদের প্রাদ্রী ও বিশপগণের মত হঠকারী ও একগুঁয়ে নয়, তারা আল্লাহর নবীর নির্দেশগুলো বুঝতে পারে এবং সত্যকে স্বীকার করে, তারা অশ্রুসজল চোখে বলে, হে প্রভু! আমরা অন্তর থেকে আশা করি যে যেহেতু ভাল লোকরা যা বিশ্বাস করত এবং আমরাও তাই করি, এবং তা আমাদের ধর্ম বিশ্বাসীদের দলে স্থাপিত করবে: তাহলে আমরা কেন আল্লাহ ও তার সত্য প্রচারকারী নবীকে বিশ্বাস করব না? (৫:৮২-৮৩)।

হে সম্রাট! 
আমি তাদেরই একজন যারা আনন্দের সাথে কোরআন পাঠ করে। আমি তাদেরই একজন যারা আপনার জনগণের একজন হতে চায়। আমি আল্লাহর নামে সাক্ষ্য দিচ্ছি যে, আপনার নবীর মতবাদ সন্দেহাতীতভাবে সত্য। করুণাময় আল্লাহ এ সত্য আমার কাছে কিভাবে প্রকাশ করেছেন তা শোনার জন্য আমি মহামান্য সুলতানের কাছে বিনীত আবেদন জানাচ্ছি।

বাইজান্টাইন সময়কালে কনষ্টান্টিনোপল।
হে সম্রাট! 
আমি প্রথমেই বলে নেই যে হত্যা, লুন্ঠন বা যৌন অপরাধের কারণে খৃষ্টানদের যারা নিজেদের মধ্যে বসবাস করতে না পেরে আপনার আশ্রয় নিয়েছে, আমি সেরূপ নই। এক বৎসর পূর্বেই আমি সিদ্ধান্ত নেই এবং কনষ্টান্টিনোপলের পথে প্রেসবার্গ (Presburg) পর্যন্ত অগ্রসর হই। কিন্তু হাঙ্গেরীয় ভাষা না জানার কারণে আর অগ্রসর হতে পারিনি এবং অনিচ্ছা সত্বেও আমি দেশে ফিরতে বাধ্য হই। তাছাড়া কোন ব্যক্তি ইসলাম গ্রহণ করতে আমাকে উদ্বুদ্ধ বা বাধ্য করেনি। কে তা করবে? আমি তো মুসলিমদের কাছে অপরিচিত এবং তাদের থেকে বহু দূরে রয়েছি। 

অন্যদিকে মহামান্য সুলতান যেন আমাকে তাদের একজন বলে না ভাবেন যারা যুদ্ধে পরাজিত হয়ে বন্দী হয়েছে এবং ইসলাম গ্রহণ করেছে অনিচ্ছায়, যারা সুযোগ পেলেই পালিয়ে যাবে এবং ইসলাম ও সত্য ধর্মের নিন্দা করবে। আমি মহামান্য সুলতানের কাছে আমার বিনীত আবেদন, আমি যা বলতে যাচ্ছি তাতে যেন তিনি অনুগ্রহ করে মনোযোগ দেন এবং আমার বিষয়টি উপলব্ধি করেন। 

সেলিমের নির্মিত মসজিদ, সিয়েনা।
হাইডেলবার্গ বিশ্ববিদ্যালয়ে ধর্ম প্রচারকের পদে উন্নীত হওয়ার পর আমি খৃষ্টধর্মের বহু প্রকার মতবিরোধ ও বিভক্তি সম্পর্কে বিচার বিশ্লেষণ শুরু করি। কারণ আমাদের মধ্যে যত মানুষ তত মত ও মনোভাব। আমি যীশুখৃষ্টের সময় থেকে যত পণ্ডিত ও ব্যাখ্যাকার ধর্মগ্রন্থ সম্পর্কে যা লিখেছেন ও শিক্ষা দিয়েছেন, তার সংক্ষিপ্তসার তৈরির কাজে হাত দেই। আমি শুধু দু’টি স্থানেই নিজেকে সম্পৃক্ত করেছিলাম। এক, মুসার নির্দেশ এবং গসপেল। এরপর আমি ধর্মীয় আচার-অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ঈশ্বরকে একান্তভাবে ডাকতে থাকি, প্রার্থনা করতে থাকি যাতে তিনি আমাকে সঠিক পথ দেখান, যেন আমি বিভ্রান্ত না হই। 

অত:পর ঈশ্বর সন্তুষ্ট হয়ে আমার কাছে প্রকাশ করলেন ‘একজন মাত্র ঈশ্বরের দলিল’, সেই দলিলের উপর ভিত্তি করে আমি একটি গ্রন্থ রচনা করি, যাতে আমি প্রমাণ করি যে খৃষ্টানগণ যে কথা বলে থাকে, যীশুর মতাদর্শে তা বলা হয়নি। কোথাও একথা বলা নেই যে, তিনি যীশু একজন ঈশ্বর; বরং ঈশ্বর একজনই যার কোন পুত্র নেই। সুতরাং আমার পক্ষে কি ঈশ্বরের সাথে আরেকজন ঈশ্বরকে সম্পৃক্ত করা সম্ভব? মুসা এটা নিষেধ করেছেন এবং যীশুও কখনো এ শিক্ষা দেননি। খোদার অনুগ্রহে দিন দিন আমি নিজেকে শক্তিশালী করে তুলেছি এবং বুঝেছি যে খৃষ্টানগণ যিশুখৃষ্টের সকল সুবিধার অপব্যবহার করেছে যেমনটি করেছিল ইহুদীরা পিতল নির্মিত সর্পকে.... 

খৃষ্টানদের মধ্যে এখন পবিত্র কিছু খুঁজে পাওয়া যাবে না, তাদের অধিকাংশই এখন ধর্মের ব্যাপারে মিথ্যাচারী। তারা মুসার কিতাব ও গসপেলের সব কিছুরই অপব্যাখ্যা করে বিকৃতির শিকার হয়েছে যা আমি আমার লেখা একটি বইতে দেখিয়েছি এবং বইটি আমি আপনাকে উপহার প্রদান করব। 

সিলভানের শিরোচ্ছেদ করা হচ্ছে।
মূসা ও তার কিতাব, ঈসার ব্যাপারে সুবিধাজনক সাক্ষ্য দিয়েছে। অন্যদিকে, কোর’আন মূলত: অপব্যাখ্যার মাধ্যমে মুসার কিতাব ও ঈসার গসপেল বিকৃত করার বিষয়টির উপর জোর দিয়েছে। কার্যত: খোদার বাণী যদি সঠিকভাবে ব্যাখ্যা করা হত তাহলে ইহুদী, খৃষ্টান ও তুর্কিদের মধ্যে কোন প্রভেদ থাকত না। কোর’আন সত্য। মুহম্মদের ধর্ম সকল মিথ্যা ব্যাখ্যাকে খন্ডন করেছে এবং সৃষ্টিকর্তা খোদার সঠিক অর্থ শিক্ষা দিয়েছে....

অত:পর আমি বুঝতে পারি যে খোদা একজন এবং মসিহ ঈসার প্রকৃত ধর্মমতের শিক্ষা আমরা লাভ করিনি। তাই খৃষ্টানদের সকল অনুষ্ঠানের সাথেই মূলের অত্যন্ত বেশি পার্থক্য রয়েছে। আমি কোর’আন দেখিনি। আমাদের খৃষ্টানরা মুহম্মদের ধর্ম সংশ্লিষ্ট কোন কিছু যাতে কোথাও বিস্তার লাভ করতে না পারে সেজন্যে সতর্ক দৃষ্টি রাখে এবং দরিদ্রগণ যাতে এসব সত্য জেনে তাতে বিশ্বাস স্থাপন না করে, সেজন্যে তারা সত্যকে গোপন করে কোর’আনের মতবাদ সম্পর্কে এমন কুৎসা রটনা করে যে তারা কোর’আনের নাম শুনেই আতঙ্কগ্রস্ত হয়ে পালিয়ে যায়। তা সত্ত্বেও অলৌকিকভাবে সেই মহাগ্রন্থটি আমার হাতে এসে পড়েছে এবং এজন্যে আমি খোদার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই। 

সম্রাট ম্যাক্সিমিলিয়ান।
যে জ্ঞান আমি লাভ করেছি তা সকলের কাছে ব্যক্ত করার সকল পন্থা অবলম্বন করতে মনস্থ করেছি এবং যদি কেউ তা গ্রহণ না করে তাহলে আমি আমার পদ থেকে পদত্যাগ করব। আমি খৃষ্ট ধর্মের কিছু বিষয়ে চার্চ ও অন্যান্য ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে যে বিরোধ চলছে তার সমালোচনা শুরু করেছি। আমি বিষয়টাকে এমন এক পর্যায়ে নিয়ে এসেছি যে সাম্রাজ্যের সকল লোকই এখন তা জেনে গেছে এবং আমি কিছু জ্ঞানী ব্যক্তিকে আমার পাশে পেয়েছি। আমার নিয়োগ কর্তা যিনি একজন রাজপুত্র এবং ক্ষমতার দিক দিয়ে জার্মানিতে সম্রাটের পরেই তার স্থান, সম্রাট ম্যাক্সিমিলিয়ানের হামলার ভয়ে আমাকে পদচ্যুত করেছেন...।”

এ চিঠিটি সম্রাট ম্যাক্সিমিলিয়ানের (Maximillian) হাতে পড়ে। নিউসার তার দু’বন্ধু সিলভান (Sylvan) ও ম্যাথিয়াস ভিহি (Mathias Vehe)-সহ গ্রেফতার হন। তাঁদের কারাগারে নিক্ষেপ করা হয়। ১৫৭০ সালের ১৫ জুলাই নিউসার কারাগার থেকে পালিয়ে যান ও পরে গ্রেফতার হন। তিনি দ্বিতীয়বার পলায়ন করেন এবং আবারও গ্রেফতার হন। দু’বছর ধরে তাদের বিচার চলে। বিচারে নিউসারকে কারাবাস ও সিলভানকে শিরোচ্ছেদের মাধ্যমে হত্যার আদেশ দেয়া হয়। এ পর্যায়ে নিউসার আবারও পলায়ন করেন। এবার তিনি কনষ্টান্টিনোপলে পৌঁছিতে সক্ষম হন। 

সমাপ্ত।
উৎস: Jesus a Prophet of Islam, by Muhammad Ata ur-Rahim.
ছবি: Wikipedia, wikipaintings, studyblue, irgaf.

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন