pytheya.blogspot.com Webutation

২ নভেম্বর, ২০১২

Saul: তালুতকে রাজপদে অভিষেকের উপাখ্যান।


শমুয়েলের দু'পুত্রের দু'জনই (যোয়েল ও অবিয়) ছিল অপদার্থ। তাই তিনি যখন খুব বৃদ্ধ হয়ে পড়লেন তখন সীমান্তবর্তী জাতিসমূহের আক্রমণাত্মক মনোভাব লক্ষ্য করে দেশের অখন্ডতা রক্ষার উদ্দেশ্যে  বিভিন্ন সেনাছাউনিতে অবস্থানকারী যোদ্ধারা একজন ভবিষ্যৎ নেতার প্রয়োজন অনুভব করল এবং তারা সম্মিলিতভাবে তাকে অনুরোধ করে বলল, ‘আপনি আমাদের জন্যে একজন রাজা মনোনীত করেন যেন আমরা তার নেতৃত্বে আল্লাহর পথে যুদ্ধ করতে পারি।’

তিনি বললেন, ‘যদি তোমাদের যুদ্ধের আদেশ দেয়া হয়, তবে কি তোমরা যুদ্ধ করবে না?’
তারা বলল, ‘যখন নিজেদের ঘরবাড়ী ও সন্তান-সন্তুতি থেকে দূরে পড়ে আছি, তখন কেন আমরা আল্লাহর পথে যুদ্ধ করব না?’

লোকেরা শমূয়েলের কাছে একজন রাজা দাবী করল।
এ সম্পর্কিত কোরআনের আয়াতসমূহ- যখন তারা নিজেদের নবীকে বলেছিল, ‘আমাদের জন্যে একজন রাজা ঠিক কর যেন আমরা আল্লাহর পথে যুদ্ধ করতে পারি।’ 
সে বলল, ‘যদি তোমাদের যুদ্ধের আদেশ দেয়া হয়, তবে কি তোমরা, কি মনেকর, তখন তোমরা যুদ্ধ করবে না?’
তারা বলল, ‘যখন নিজেদের ঘরবাড়ী ও সন্তান-সন্তুতি থেকে দূরে পড়ে আছি, তখন কেন আমরা আল্লাহর পথে যুদ্ধ করব না?’(২:২৪৬) 

শমুয়েল লোকদেরকে রাজা শাসিত রাজ্যের বিপদ সম্পর্কে জ্ঞাত করলেন, বললেন- ‘খোদাই তোমাদের একমাত্র নেতা, রাজা যিনি তোমাদের সর্বপ্রকার প্রয়োজন মেটাতে সক্ষম।’
কিন্তু লোকেরা তাদের দাবীতে অটল ছিল। ফলে খোদা তাকে জানালেন, ‘তাদের দাবী মেনে নাও। অতঃপর ভাবী রাজাকে যথাসময়ে তোমার কাছে প্রেরণ করা হবে।’ 

প্রান্তরে তালুতের হারিয়ে যাওয়া গাধার পাল।
এদিকে বিন্যামিন গোত্রের কীশ নামক এক ব্যক্তির একপাল গাধা প্রান্তরে হারিয়ে গেল। তখন ঐ ব্যক্তি তার পুত্র তালুতকে বলল, ‘তুমি একজন চাকরকে সঙ্গে নিয়ে গাধাগুলো খুঁজতে যাও।’

তালুত (Saul) হারিয়ে যাওয়া গাধাগুলিকে খোঁজ করার জন্যে একজন ভৃত্যসহ বের হল। তারা সেগুলো খুঁজতে খুঁজতে ইফ্রয়িমের পাহাড়ী এলাকা এবং শালিম এলাকার মধ্যে দিয়ে গেল, কিন্তু গাধাগুলো পেল না। তারপর তারা বিন্যামিনীয় এলাকায় গেল, কিন্তু সেখানেও সেগুলো ছিল না। এরপর তারা যখন সূফ এলাকায় পৌঁছিল তখন তালুত তার চাকরকে বলল, ‘চল, আমরা ফিরে যাই। তা নাহলে পিতা হয়তঃ গাধাগুলোর চিন্তা বাদ দিয়ে আমাদের জন্যে দুঃশ্চিন্তা করবেন।’

চাকর বলল, ‘এই শহরে খোদার এক বান্দা থাকেন। তাকে সবাই সম্মান করে এবং তিনি যা বলেন সত্যি সত্যিই তা ঘটে। চলুন, আমরা এখন সেখানে যাই। তিনি হয়তঃ বলে দিতে পারবেন আমাদের কোন পথে যেতে হবে।’
তালুত বলল, ‘কিন্তু যদি আমরা সেখানে যাই, তবে তার জন্যে কি নিয়ে যাব? আমাদের যে খাবার ছিল তা তো শেষ হয়ে গেছে। খোদার বান্দাকে দেবার জন্যে কোন উপহারও তো আমাদের কাছে নেই। কি আছে আমাদের?’
চাকর বলল, ‘আমার কাছে তিন গ্রাম রূপা আছে।’
সে বলল, ‘বেশ বলেছ, চল, আমরা যাই।’ 
তারা শহরের দিকে রওনা দিল। 

যে পথটা শহরের দিকে উঠে গেছে, সেই পথ ধরে তালুত ও তার চাকর যখন উঠে যাচ্ছিল, তখন কয়েকজন মেয়ের সঙ্গে তাদের দেখা হল। মেয়েরা পানি নেবার জন্যে নেমে আসছিল। তালুত তাদেরকে জিজ্ঞেস করল, ‘ধর্মগুরু কি এখানে আছেন?’
তারা বলল, ‘হ্যাঁ, আছেন; আর তিনি আজই আমাদের শহরে এসেছেন, কারণ আজ লোকেরা পশু উৎসর্গের অনুষ্ঠান করবে। আর তাকেই ঐ উৎসর্গের জিনিস আশীর্বাদ করতে হবে। আপনারা এক্ষুণি গেলে তার দেখা পাবেন।’

যখন তারা শহরের মধ্যে প্রবেশ করল, তখন এক বৃদ্ধের সঙ্গে তাদের দেখা হল। তালুত তাকে জিজ্ঞেস করল, ‘ধর্মগুরু কি এখানে আছেন?’
তিনি বললেন, ‘আমিই তিনি।’
তালুত বলল, ‘আমরা আপনার খোঁজেই এসেছি।’
এতে শমুয়েল তাকে বললেন, ‘কোথা থেকে এসেছ?’ 
তালুত বলল, ‘বিন্যামিনীয় এলাকা থেকে।’
সঙ্গে সঙ্গে শমূয়েলের মনে পড়ল গতকাল খোদা তাকে বলেছিলেন, ‘আগামীকাল বিন্যামিন গোষ্ঠির একজনকে আমি তোমার কাছে পাঠাব। তাকেই তুমি রাজপদে অভিষেক করবে।’ 

শমুয়েল তালুতকে ভাল করে লক্ষ্য করলেন। অতঃপর বললেন, ‘আমার সঙ্গে এসো, আজ তোমরা আমার সঙ্গে খাবে। কাল সকালে আমি তোমাকে বিদায় দেব, আর তোমার মনে যা আছে তা তোমাকে বলব।’ 

শমুয়েল, তালুত ও তার চাকরকে নিয়ে খাবার ঘরে গেলেন এবং নিমন্ত্রিতদের মধ্যে সবচেয়ে সম্মানিত জায়গায় তাদেরকে বসালেন। এরপর তিনি বাবুর্চিকে ডেকে বললেন, ‘যে মাংস আলাদা করে রাখার জন্যে তোমাকে দিয়েছিলাম তা নিয়ে এসো।’

বাবুর্চি গিয়ে উরু আর তার সঙ্গেকার মাংস এনে তালুতের সামনে রাখল। তালুত অবাক হয়ে শমুয়েলের মুখের দিকে তাকাল। তখন শমুয়েল বললেন, ‘এটা তোমার জন্যেই রাখা হয়েছিল। আজ তুমি এখানে খাবে বলে লোকদেরকে নিমন্ত্রণ করার সময়েই আমি এটা তোমার জন্যে আলাদা করে রাখতে বলেছিলাম।’ 

খাওয়া-দাওয়ার পর শমুয়েল তাদেরকে নিয়ে শহরে তার বাড়ীতে এলেন। তারপর তিনি তার বাড়ীর ছাদে বসে তালুতের সাথে কথাবার্তা বললেন। পরদিন সকালে তারা ঘুম থেকে উঠলে শমুয়েল তালুতকে বললেন, ‘প্রস্তুত হও, আমি তোমাকে এখন বিদায় দেব।’

তারা প্রস্তুত হয়ে বেরিয়ে পড়লেন। শহরের সীমানার কাছাকাছি এসে শমুয়েল তালুতকে বললেন, ‘তোমার চাকরকে এগিয়ে যেতে বল, আর তুমি কিছুক্ষণের জন্যে এখানে দাঁড়াও।’

তালুতকে শমূয়েলের অভিষেক।
তালুতের চাকর এগিয়ে গেলে শমুয়েল অভিষেক তেলের শিঙ্গা থেকে তেল তালুতের মাথার উপর তেল ঢেলে দিলেন। তারপর তিনি তাকে চুম্বন করে বললেন, ‘খোদা আজ ইস্রায়েলীদের উপরে তোমাকে নেতা হিসেবে অভিষেক করলেন।

--এখন তুমি আমার কাছ থেকে চলে যাবার পর আজই বিন্যামিন এলাকার সীমানায় রাহেলার কবরের কাছে দু’জন লোকের দেখা পাবে। তারা তোমাকে বলবে, ‘আপনি যে গাধাগুলোর খোঁজে বেরিয়েছিলেন সেগুলো পাওয়া গেছে। কিন্তু এখন আপনার পিতা গাধা গুলোর চিন্তা ছেড়ে আপনার চিন্তায় পড়েছেন। তিনি বলছেন যে, তার পুত্র সম্বন্ধে এখন তিনি কি করবেন?’

--তারপর তুমি সেখান থেকে এগিয়ে গিয়ে তবোর এলাকার এলোন গাছের কাছে পৌঁছিলে দেখতে পাবে তিনজন লোক খোদার উপাসনার জন্যে বৈথেলের দিকে উঠে যাচ্ছে। তুমি দেখবে তাদের একজন তিনটে ছাগলের বাচ্চা, আর একজন তিনটে রুটি ও একজন এক পাত্র আঙ্গুররস বয়ে নিয়ে যাচ্ছে। তারা তোমাকে শুভেচ্ছা জানিয়ে দু’টো রুটি দেবে।

--তারপর তুমি গিবিরোৎ-হা-এলোহিম শহরে যাবে। সেখানে প্যালেস্টীয় সৈন্যদের একটা ছাউনি আছে। শহরে পৌঁছিলে এমন একদল আলেমদের সঙ্গে তোমার দেখা হবে যারা খোদার প্রশংসা করতে করতে উপাসনার উঁচুস্থান থেকে নেমে আসছে। তাদের দলের সামনের লোকেরা বীণা, খঞ্জনি, বাঁশী ও সূরবাহার বাঁজাতে বাঁজাতে চলতে থাকবে, তুমি তাদের দলে সামিল হবে। এসব চিহ্ন ঘটলে তোমার তখন যা করা উচিৎ তুমি তাই কোরও, খোদা তোমার সঙ্গে থাকবেন।’ 

তালুত শমুয়েলের কাছ থেকে বিদায় নিয়ে চলে এল। পথে সেদিনই চিহ্ন হিসেবে শমুয়েলের বলা সকল ঘটনাই ঘটল। 
তালুত ও তার চাকর একসময় বাড়ী ফিরে এল। তালুতের পিতৃব্য তাদেরকে দেখতে পেয়ে জিজ্ঞেস করল, ‘তোমরা কোথায় গিয়েছিলে?’
তালুত বলল, ‘গাধাগুলো খুঁজতে গিয়েছিলাম, কিন্তু সেগুলো কোথাও না পেয়ে আমরা শমুয়েলের কাছে গিয়েছিলাম।’
সে বলল, ‘তিনি তোমাদেরকে কি বলেছেন?’
চাকর বলল, ‘তিনি আমাদেরকে স্পষ্টই বলে দিলেন যে গাধীগুলো পাওয়া গেছে।’ 

শমুয়েল মিস্পাতে সাক্ষ্য তাম্বুর সম্মুখে ইস্রায়েলীদের ডেকে সমবেত করলেন। অতঃপর তিনি তার ভাষণে তাদেরকে বললেন, ‘সর্বশক্তিমান খোদা মিসর থেকে তোমাদেরকে বের করে এনেছেন, অত্যাচারী ফেরাউন ও মিসরীয়দের হাত থেকে। অতঃপর এখানকার যে রাজ্যগুলো তোমাদের উপর অত্যাচার করত তাদের হাত থেকেও তিনি তোমাদের উদ্ধার করেছেন।’

--কিন্তু সেই দযাময় খোদা যিনি সমস্ত বিপদ ও দুর্দশা থেকে তোমাদেরকে উদ্ধার করেছেন, তাঁকেই তোমরা অগ্রাহ্য করেছ আর বলেছ- ‘আমাদের উপর একজন বাদশা নিযুক্ত করুন।’ -কাজেই এখন তোমরা যে যার গোষ্ঠি ও বংশ অনুসারে সর্বদ্রষ্টা খোদার সম্মুখে উপস্থিত হও।’

শমুয়েল জানতেন খোদা কাকে ইস্রায়েলীদের নেতা মনোনীত করেছেন। কিন্তু তিনি নিজ থেকে তার নাম প্রকাশ করলেন না। বরং তিনি প্রকাশ্য গুলিবাঁটের আয়োজন করলেন, যেন এ বিষয়ে কারও কিছু বলার না থাকে। 

গুলিবাঁটে শমুয়েল রাজা নির্বাচিত হলেন।
শমুয়েল গোত্র প্রধানদেরকে কাছে ডাকলেন। অতঃপর তাদের মধ্যে থেকে গুলিবাঁটের মাধ্যমে বিন্যামিন গোত্রকে বেঁছে নেয়া হল। তারপর বিন্যামিন গোত্রের সকল বংশপ্রধানকে সামনে আনা হল। তাদের মধ্যে থেকে মট্রীয়ের বংশকে বেঁছে নেয়া হল। এভাবে শেষপর্যন্ত কীশের পুত্র তালুতের নাম উঠল। তখন তিনি সকলের উদ্দেশ্যে বললেন, ‘আল্লাহ তালুতকে তোমাদের রাজা মনোনীত করেছেন।’ 

কিন্তু তালুতের খোঁজ করা হলে তাকে পাওয়া গেল না। তখন লোকেরা খোদার কাছে জানতে চাইল, ‘তিনি কি এখানে আছেন?’
উত্তর এল, ‘দেখ সে মালপত্রের মধ্যে লুকিয়ে আছে।’

তখন লোকেরা দৌঁড়ে গিয়ে সেখান থেকে তালুতকে নিয়ে এল। সে এসে লোকদের মধ্যে দাঁড়ালে দেখা গেল সকলের চেয়ে সে প্রায় এক মাথা লম্বা। শমুয়েল এসময় সমবেত সকলকে বললেন, ‘তোমরা কি খোদার বেঁছে নেয়া ব্যক্তিটিকে দেখতে পাচ্ছ? সমস্ত লোকের মধ্যে তার মত আর কেউ নেই।’ 

এসময় কিছুলোক চিৎকার করে বলল, ‘তার বংশ তো বড় নয়। আর তাকে প্রচুর ধন-সম্পত্তিও তো দেয়া হয়নি। সে কি করে আমাদের উপর কর্তৃত্ব করবে? আর তার নেতৃত্বের লক্ষণই বা কি?’

শমুয়েল বললেন, ‘আল্লাহই তাকে মনোনীত করেছেন, আর তিনি তাকে দেহে ও মনে সমৃদ্ধ করেছেন। অবশ্যই আল্লাহ যাকে ইচ্ছে তাঁর কর্তৃত্ব দান করেন। আল্লাহ প্রাচুর্যময়, তত্ত্বজ্ঞানী। তার নেতৃত্বের লক্ষণ এই যে, বৈৎ-শেমসে মূসা ও হারুনের রেখে যাওয়া নিয়ম সিন্দুকটি পৌঁছিবে, যা ফেরেস্তারা বয়ে নিয়ে আসবে।’

এ সম্পর্কিত কোরআনের আয়াতসমূহ- তাদের নবী তাদেরকে বলেছিল, ‘আল্লাহ তালুতকে তোমাদের রাজা মনোনীত করেছেন।’ 
তারা বলল, ‘আমরা যখন কর্তৃত্ব করার জন্যে বেশী যোগ্য তখন সে কেমন করে আমাদের উপর কর্তৃত্ব করবে; আর প্রচুর ধন-সম্পত্তিও তো তাকে দেয়া হয়নি।’ 

সে (নবী) বলল, ‘আল্লাহই তাকে মনোনীত করেছেন, আর তিনি তাকে দেহে ও মনে সমৃদ্ধ করেছেন। অবশ্যই আল্লাহ যাকে ইচ্ছে তাঁর কর্তৃত্বদান করেন। আল্লাহ প্রাচুর্যময়, তত্তজ্ঞানী। তার কর্তৃত্বের লক্ষণ এই যে তোমাদের কাছে একটা তাবুত (সিন্দুক) আসবে যার মধ্যে তোমাদের জন্যে তোমাদের প্রতিপালকের কাছ থেকে একটা শান্তিপত্র ও কিছু জিনিস থাকবে, যা মূসা ও হারুণের বংশধরেরা রেখে গিয়েছে, ফেরেস্তারা সেটা বয়ে নিয়ে আসবে।’(২:২৪৭-২৪৮)

প্যালেস্টাইনের পাঁচ নগরীর অবস্থান।
মিস্পায় ইস্রায়েলী নেতৃবর্গের সমাবেশে গুলিবাঁটের মাধ্যমে তালুত রাজা মনোনীত হবার অল্প কিছুদিন পর ফেরেস্তারা নিয়ম সিন্ধুকটি একটি গরুর গাড়ীতে করে ইক্রোণ থেকে বৈৎ-শেমসে নিয়ে এল।

সিন্দুকটি সাত মাস পর্যন্ত প্যালেস্টীয়দের দেশে ছিল। এসময় টিউমার রোগের পাশাপাশি দেশে প্রচন্ড ইঁদুরের উৎপাত দেখা দিয়েছিল। প্যালেস্টীয় শাসনকর্তারা তাই পুরোহিত ও গণকদের ডেকে জিজ্ঞেস করল, ‘আমরা এই সিন্দুকটি নিয়ে কি করব? বা কিভাবে আমরা এটাকে তার নিজের জায়গায় পাঠিয়ে দেব?’

তারা বলল, ‘আপনারা যদি ইস্রায়েলীদের দেবতার সিন্দুকটা পাঠিয়েই দেন তবে তা খালি পাঠাবেন না। আপনারা অবশ্যই তাঁর কাছে একটা দোষ উৎসর্গ পাঠিয়ে দেবেন। তাহলে আপনারাও সুস্থ্য হবেন এবং জানতে পারবেন, কেন তাঁর কঠোর হাত আপনাদের উপর থেকে সরে যাচ্ছে না।’

শাসনকর্তারা জিজ্ঞেস করল, ‘দোষ উৎসর্গ হিসেবে আমরা তাঁর কাছে কি পাঠিয়ে দেব?’
তারা বলল, ‘প্যালেস্টীয় শাসনকর্তাদের সংখ্যা অনুসারে (অসদোদ, গাজা, অস্কিলোন, গাদ ও ইক্রোণ) পাঁচটা সোনার টিউমার ও ইঁদুর পাঠিয়ে দিন। কারণ, লোকদের উপর এবং শাসনকর্তাদের উপর একই আঘাত এসেছে। যে টিউমার রোগ আপনাদের শরীরে দেখা দিয়েছে এবং যে ইঁদুর আপনাদের দেশ ধ্বংস করে দিচ্ছে আপনারা সেগুলোর মূর্ত্তি তৈরী করুন, আর ইস্রায়েলীদের দেবতা খোদার প্রশংসা করুন। তাহলে হয়তঃ তিনি আপনাদের উপর থেকে এবং আপনাদের দেবতার উপর থেকে তাঁর কঠোর হাত সরিয়ে নেবেন। আপনারা কেন ফেরাউন ও মিসরীয়দের মত করে নিজেদের মনকে কঠিন করছেন? ইস্রায়েলীদের খোদা যখন মিসরীয়দের বোকা বানিয়েছিলেন তখন তারা ইস্রায়েলীদের যেতে দিয়েছিল, আর তারা চলে গিয়েছিল।

ম্যাপে প্যালেস্টাইনের পাঁচ নগরী।
--এখন আপনারা একটা নতুন গাড়ি তৈরী করুন এবং দুধ দেয় এমন দু'টো গাভী নিন যাদের উপর কখনও জোয়াল চাপান হয়নি। সেগুলো আপনারা সেই গাড়িতে জুড়ে দেবেন, কিন্তু তাদের বাছুরগুলো তাদের কাছ থেকে সরিয়ে নিয়ে যাবেন। তারপর খোদার সিন্দুকটি আপনারা সেই গাড়ির উপর বসাবেন এবং দোষ উৎসর্গের জন্যে যেসব সোনার জিনিস আপনারা খোদাকে দেবেন সেগুলো একটা বাক্সের মধ্যে করে সিন্দুকের পাশে রাখবেন। এভাবে সিন্দুকটি পাঠিয়ে দেবেন যাতে সেটি চলে যায়। সিন্দুকটি যদি নিজের দেশের পথ ধরে বৈৎ-শেমসে যায় তবে বুঝবেন আপনাদের উপর এই ভীষণ অমঙ্গল খোদাই এনেছেন। কিন্তু, যদি সেই পথে না যায়, তবে বোঝা যাবে লোকদের উপর এই আঘাত তাঁর হাত থেকে আসেনি, এমনিই তা আপনাদে উপর এসেছে।’ 

পুরোহিত ও গণকদের নির্দেশ মত সবকিছু তৈরী করা হল। আর গাভী দু’টো ডানে বায়ে না ঘুরে ডাকতে ডাকতে সিন্দুকটি নিয়ে রাজপথ দিয়ে সোজা বৈৎ-শেমসের দিকে চলল। প্যালেস্টীয় শাসনকর্তারা গাড়ীটি অনুসরণ করে বৈৎ-শেমসের সীমানা পর্যন্ত এল।

বৈৎ-শেমসের লোকেরা উপত্যকার মধ্যে গম কাটছিল। তারা চোখ তুলে চাইতেই গরুর গাড়ীটিকে এগিয়ে আসতে দেখল। অতঃপর সেটি নিকটবর্তী হলে সিন্দুকটি তাদের নজরে পড়ল। তারা খুশীতে চিৎকার চেঁচামেচি করতে লাগল। 

গরুর গাড়ীতে নিয়ম সিন্দুক। 
গাড়িটা এসে ইউশায়ার ক্ষেতের মধ্যে একটা বড় পাথরের পাশে থামল। এসময় লেবীয়রা এগিয়ে এসে সিন্দুকটি এবং উৎসর্গীত জিনিসসুদ্ধ বাক্সটি নামিয়ে ঐ বড় পাথরটির উপর রাখল। অতঃপর তারা সেই গাড়িটির কাঠ কেটে ঐ দু’টো গাভী দিয়েই খোদার উদ্দেশ্যে সেদিনই পোড়ান উৎসর্গের অনুষ্ঠান করল। আর প্যালেস্টীয় শাসনকর্তারা সবকিছু দেখে সেদিনই ইক্রোণে ফিরে গেল। 

বৈৎ-শেমসের কিছুলোক কৌতুহলী হয়ে সিন্দুকের ভিতর কি আছে তা খুলে দেখল। এ কারণে তারা এক মহামারীতে আক্রান্ত হয়েছিল। আর তাই তারা লোক মারফত কিরিয়ৎ-জিরিমের লোকদের কাছে সংবাদ পাঠাল, ‘প্যালেস্টীয়রা নিয়ম সিন্দুক ফিরিয়ে দিয়েছে। তোমরা এসে সিন্দুকটি তোমাদের কাছে নিয়ে যাও।’

কিরিয়ৎ-জিরিমের লোকেরা এসে নিয়ম সিন্দুকটি নিয়ে গেল। তারা সেটি পাহাড়ের উপরকার তাদের শহরে অবীনাদবের বাড়ীতে রাখল এবং তার দেখাশোনা করার জন্যে অবীনাদবের পুত্র ইলিয়াষরকে তারা খোদার উদ্দেশ্যে আলাদা করে নিল। 

পরবর্তী বিশ বৎসর ধরে সিন্দুকটি এখানেই ছিল।

সমাপ্ত।
ছবি: dailytruthbase.blogspot, bible-history, members.bib-arch, freepages.genealogy.rootsweb.ancestry.

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন