pytheya.blogspot.com Webutation

২৯ অক্টোবর, ২০১২

Quran: কোরআনের কিছু আয়াত সুষ্পষ্ট অর্থবোধক নয়।


হুয়াইয়া বিন আখতাব-ইহুদি বনি কুরাইজা গোত্রের এই গোত্রপতি, মদিনায় মুহম্মদের আগমনের পর মুহম্মদ ও কোরআন (Qur'an) সম্পর্কে জানতে বেশ কৌতুহলী হল। অত:পর কেউ একজন যখন তাকে সূরা বাকারার প্রাথমিক কয়েকটি আয়াত পাঠ করে শোনাল, তখন সে বাকারার প্রারম্ভের খন্ড বর্ণমালা আলিফ-লাম-মীম -এই অক্ষরগুলোর পাঠ শুনে বলল, ‘আবজাদের হিসেব অনুযায়ী এই অক্ষরগুলোতে মুহম্মদী ধর্মের স্থায়িত্বকালের বর্ণনা দেয়া হয়েছে।’

সে মুহম্মদের কাছে আগমনপূর্বক বলল, ‘আপনার পূর্বে বহু নবী-রসূল পাঠান হয়েছে, কিন্তু আপনাকে ব্যতিত আল্লাহ আর কাউকেও রাজ্যের আয়ূ ও উম্মতের দানা-পানির সময় সুস্পষ্ট ভাবে জানিয়ে দেননি।’

হুয়াইয়া বলল, ‘আলিফ-এক, লাম-ত্রিশ, মিম-চল্লিশ -মোট একাত্তুর বৎসর এই ধর্মের স্থায়িত্বকাল। সুতরাং এমন সংকীর্ণ ধর্মে কোন জ্ঞানী সম্পৃক্ত হতে পারে না।’
অতঃপর সে বলল, ‘হে মুহম্মদ! এই ধরণের আরও কোন শব্দ আপনার কোরআনে আছে কি?’
তিনি বললেন, ‘হ্যাঁ, আলিফ, লাম, মিম, ছোয়াদ।’

সে বলল, ‘এবার কিছু সময় বেড়ে যাবে। ‘আলিফ-এক, লাম- ত্রিশ, মিম-চল্লিশ, ছোয়াদ-নব্বুই- মোট এক‘শ একষট্টি বৎসর।’
মুহম্মদ বললেন, ‘আরও আছে। আলিফ, লাম, রা।’
সে বলল, ‘এবার আরও বেড়ে গেল। আলিফ-এক, লাম- ত্রিশ, রা-দু‘শ-মোট দু‘শ একত্রিশ বৎসর।’
এ সময় মুহম্মদ হেসে ফেললেন, বললেন, ‘আরও আছে আলিফ, লাম, মিম, রা।
এতে সে গম্ভীর হয়ে গেল, বলল, ‘আপনার ধর্ম বা আপনার উম্মতের আয়ূস্কাল সম্বন্ধে কিছুই বুঝতে পারলাম না।’

এসময় নিম্নোক্ত আয়াত নাযিল হয়, যাতে বলা হয়েছে যে, আল্লাহ মুহম্মদের প্রতি এমন কিতাব অবতীর্ণ করেছেন যে কিতাবের কিছু আয়াত সুস্পষ্ট অর্থবোধক, যেগুলো কিতাবের মূলনীতি, আর অপর কিছু আয়াত সুষ্পষ্ট অর্থবোধক নয় এবং খন্ড বর্ণমালাগুলো সেই আয়াতসমূহের অন্তর্ভূক্ত। সুতরাং যাদের অন্তরে কুটিলতা রয়েছে তারা অনুসরণ করে ফিৎনা বিস্তার এবং অপব্যাখ্যার উদ্দেশ্যে তন্মধ্যকার রূপকগুলোর। আর সেগুলোর ব্যাখ্যা আল্লাহ ব্যতিত কেউ জানেন না।

কোরআনের আয়াতটি এই-তিনি (আল্লাহ) তোমার প্রতি এমন কিতাব অবতীর্ণ করেছেন যে কিতাবের কিছু আয়াত সুস্পষ্ট অর্থবোধক, যেগুলো কিতাবের মূলনীতি আর অপর কিছু আয়াত সুষ্পষ্ট অর্থবোধক নয় এবং খন্ড বর্ণমালাগুলো সেই আয়াতসমূহের অন্তর্ভূক্ত। সুতরাং যাদের অন্তরে কুটিলতা রয়েছে তারা অনুসরণ করে ফিৎনা বিস্তার এবং অপব্যাখ্যার উদ্দেশ্যে তন্মধ্যকার রূপকগুলোর। আর সেগুলোর ব্যাখ্যা আল্লাহ ব্যতিত কেউ জানে না।-(৩:৭)

সমাপ্ত।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন