pytheya.blogspot.com Webutation

২০ মার্চ, ২০১২

Moses: কুদরতি পাথরখন্ড ও বারটি ঝর্ণা।

তাঁহ প্রান্তরে পৌঁছেই পানির অভাবে ইস্রায়েলীরা খুবই বড় ধরনের বিদ্রোহ করল। জনমানব শুন্য এই মরু প্রান্তরের কোথাও পানির কোন নামগন্ধ ছিল না। মানুষ পিপাসায় কাতর হয়ে এদিক ওদিক ছোটাছুটি করছিল। লোকেরা সমবেত হয়ে মূসাকে ঘিরে ধরল, বলল, ‘আমাদের জন্যে পানি ব্যবস্থা কর, এখনই।’

পানির জন্যে ইস্রায়েলীরা বিদ্রোহ করল।
মূসা বললেন, ‘তোমরা আমার সঙ্গে কেন ঝগড়া করছ, আর কেনইবা আল্লাহকে পরীক্ষা করে দেখছ?’
তারা বলল, ‘আমরা যাতে পানির অভাবে মারা যাই সেজন্যেই কি তুমি আমাদেরকে আমাদের পরিবার-পরিজন ও পশুপালসহ মিসর থেকে নিয়ে এসেছ? আমাদের বল, আল্লাহ কি আমাদের সঙ্গে আছেন, না নেই?’

তাদের অভিযোগ শুনে মূসা (Moses) আল্লাহর কাছে ফরিয়াদ করে বললেন, ‘হে আল্লাহ! আমি এই অসহিষ্ণু জনগোষ্ঠি নিয়ে কি করব? পানি না পেলে তো তারা আমাকে হত্যার জন্যে পাথর ছুঁড়বে। তুমি তো দয়াময়, সর্বক্ষমতার অধিকারী। সুতরাং তুমি তাদের জন্যে পানির ব্যবস্থা করে দাও।’
আল্লাহ বললেন, ‘তোমার লাঠি দ্বারা পাথরে আঘাত কর।’
তখন মূসা ও হারুণ লোকদেরকে এক জায়গায় একত্রিত করলেন, এই নিশ্চয়তা দিয়ে যে, তাদের জন্যে পানির ব্যবস্থা করা হবে। 

যে পাথরে আঘাত করে মূসা পানির প্রস্রবণ সৃষ্টি করলেন, তা ছিল এক বর্গহাত বিশিষ্ট একটি পাথরের টুকরো। এটা ঐ পাথর খন্ড যেটা একদা গোসলের সময় তার কাপড় নিয়ে দৌঁড় দিয়েছিল। ঘটনাটা এই-

মূসার সময়ে বনি ইস্রায়েলীরা উলঙ্গ হয়ে স্নান করত। কিন্তু মূসা লালিত-পালিত হয়েছিলেন রাজপরিবারে। সুতরাং তার ভব্যতা ও সভ্যতা জ্ঞান ছিল প্রখর। তাই তিনি সব সময়ই লোকচক্ষুর আড়ালে ঘেরা জায়গায় স্নান করতেন। এই কারণে ইস্রায়েলীরা তার বিরুদ্ধে অপবাদ রটাল- মূসা নপুংশক। 

একদিন মূসা এক পুকুরে স্নান করার সময় তার পরিধেয় বস্ত্র এক টুকরো পাথরের উপর রেখে পানিতে নামলেন। স্নান সেরে তিনি যথাস্থানে পাথর বা পরিধেয় বস্ত্র কোনটিই দেখতে না পেয়ে অবাক হলেন। 

চারিদিকে তাকিয়ে দূরে তিনি কাপড়সহ পাথরটিকে দেখতে পেলেন। তখন মূসা তার কাপড় নেবার জন্যে সেদিকে এগিয়ে গেলে পাথরটি কাপড় নিয়ে গড়িয়ে দূরে সরে যেতে লাগল। তা দেখে মূসা দৌঁড় শুরু করলেন। তাতে পাথর খন্ডটিও মূসার সাথে পাল্লা দিয়ে গড়িয়ে চলল এবং এমন এক স্থানে এসে থেমে পড়ল, যেখানে অনেক ইস্রায়েলী সমবেত ছিল। লোকেরা মূসাকে এভাবে উলঙ্গ হয়ে দৌঁড়াতে দেখে অবাক হল এবং তারা আরও অবাক হয়ে লক্ষ্য করল তাদের দেয়া অপবাদ আদৌ সত্য নয় বরং মূসা অত্যন্ত সুপুরুষ।

এভাবে আল্লাহ মূসার বিরুদ্ধে রটান অপবাদ দূর করলেন। এ সংক্রান্ত কোরআনের আয়াত- হে মুমিনেরা! মূসাকে যারা কষ্ট দিয়েছে, তোমরা তাদের মত হইও না। তারা যা বলেছিল, আল্লাহ তা থেকে তাকে নির্দোষ প্রমান করেছিলেন। সে আল্লাহর কাছে ছিল মর্যাদাবান।(৩৩:৬৯)

এদিকে পাথরখন্ড থেমে যেতেই মূসা তার কাপড় উঠিয়ে নিলেন। এসময় জিব্রাইল তাকে জানিয়েছিলেন ঐটি আল্লাহর কুদরতিপূর্ণ পাথর। তখন মূসা পাথরটি তুলে নিয়েছিলেন।

যাহোক, খোদার নির্দেশে ঐ পাথরের চারধারে মূসা চারবার আঘাত করেছিলেন। আর প্রতি আঘাতে এক এক পার্শ্ব থেকে তিনটি করে (দু‘টি কোনা এবং কর্ণদ্বয়ের ছেদবিন্দু থেকে) ঝর্ণা বের হয়েছিল। বারটি ঝর্ণা থেকে ইস্রায়েলীদের বার গোত্র তাদের প্রয়োজনীয় পানি সংগ্রহ করতে লাগল। এসময় আল্লাহ ইস্রায়েলীদেরকে বলেছিলেন, ‘আল্লাহর দেয়া জীবিকা থেকে তোমরা পানাহার কর আর পৃথিবীতে ফ্যাসাদ সৃষ্টি করে বেড়িও না।’

এ সংক্রান্ত কোরআনের আয়াতসমূহ-‘মূসার সম্প্রদায়ের মধ্যে এমন একদল মানুষ আছে যারা অন্যদেরকে সত্যের পথ দেখায় ও ন্যায়বিচার করে। আর তাদেরকে আমি বার গোত্রে বিভক্ত করেছিলাম।’(৭:১৫৯) আর যখন মূসা তার সম্প্রদায়ের জন্যে পানি চাইল, আমি বললাম, ‘তোমার লাঠি দিয়ে পাথরে আঘাত কর।’ 

আর সেখান থেকে বারটি ঝর্ণা বইতে লাগল। প্রত্যেক গোত্র নিজ নিজ পানি পান করার জায়গা চিনে নিল। (আমি বললাম), ‘আল্লাহর দেয়া জীবিকা থেকে তোমরা পানাহার কর আর পৃথিবীতে ফ্যাসাদ করে বেড়িও না।’(২:৬০) 

সমাপ্ত।
ছবি: aledocofc.blogspot.


কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন